For a better experience please change your browser to CHROME, FIREFOX, OPERA or Internet Explorer.
Self-Employment with Seller Haat (আত্নকর্মসংস্থান তৈরীতে সেলারহাট)

Self-Employment with Seller Haat (আত্নকর্মসংস্থান তৈরীতে সেলারহাট)

Self-Employment with Seller Haat আত্নকর্মসংস্থান তৈরীতে সেলারহাট

বর্তমানে আত্নকর্মসংস্থানের বিকল্প নেই। কারন প্রচুর শিক্ষিত ও মেধাবী তরুন এখন চাকুরীর বাজারে হন্যে হয়ে ঘুরছে। যোগ্যতা অনুযায়ী চাকুরী মেলানো অনেক কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশেষ করে বিশ্ব অর্থনীতির এই মন্দার সময় ভাল কিছু প্রত্যাশাও করা যাচ্ছে না।

এ মূহুর্তে স্বকর্মসংস্থান বা আত্নকর্মসংস্থানের বিকল্প নেই। ইন্টারনেটের কল্যানে বাজারজাতকরন বা পরিচিতির বিষয়টি অনেকাংশে সহজ হয়েছে কিন্তু ব্যবসা সিলেকশন, ব্যবসা সাজানো, পরিকল্পনা এসব নিজেকেই করতে হবে।

অনলাইন বা ই-কমার্সের যুগে ব্যবসায়িক কার্যক্রম শুরু অনেকাংশেই সহজ হয়েছে বলা যায় কারন যে কোন পন্য বা সেবা সবচেয়ে বড় বাধা হলো মার্কেটিং বা বিপনন কর্মকান্ড যা পূর্বে নির্দিষ্ট বাজার বা এলাকায় সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন সারাদেশে মার্কেটিং করা সম্ভব। পূর্বে একেকটি এলাকায় পণ্য বাজারজাত করতেই হিমশিম খেয়ে যেত আর এখন সেই গ্রাম বা মফস্বল থেকে পণ্য চলে আসছে শহরের মধ্যে। এজন্য তথ্য ও যোগাযোগের জন্য কাজ করছে অনলাইন বিপণন কার্যক্রম।

ক্রেতা ও ভোক্তাদের সাথে অনেক সহজেই যোগাযোগ করা সম্ভব হচ্ছে বলেই এখন সেই অজপাড়া গাঁ থেকেও তৈরীকৃত পণ্য ঢাকাসহ বড় বড় শহরগুলো পৌঁছে যাচ্ছে দ্রুত।

আসুন দেখি কিভাবে সেলারহাট আত্নকর্মসংস্থান তৈরীতে সহায়তা করছে-
ধরুন আপনি নীলফামারি জেলায় বাস করেন এবং আপনি একটি আত্নকর্মসংস্থান খুঁজছেন যে কাজটি আপনি নীলফামারি থেকেই করতে পারবেন। কিভাবে শুরু করবেন ধাপে ধাপে দেখিঃ

১) নীলফামারি জেলার সহজলভ্য ও প্রসিদ্ধ কোন পণ্য বেছে নিন যেমন- ডোমারের সন্দেশ, এছাড়াও হতে পারে হাতে তৈরী বিভিন্ন বাঁশ ও কাঠের শোপিস, তাঁত শিল্পের কাপড়-চোপড় অথবা কোন কৃষিজ পণ্য,
ফল বা ফলের বীজ ইত্যাদি।

২) এবার কিভাবে পণ্যটি সংগ্রহ করবেন কিভাবে সংরক্ষণ করবেন সে বিষয়ে অভিজ্ঞদের পরামর্শ নিন। পণ্যগুলো যারা তৈরী করে তাদের সাথে কথা বলুন আলোচনা করুন, আপনি ব্যবসা করতে চাচ্ছেন তাদের সে বিষয়ে জানান। যদি নিজে পণ্যটি তৈরী করতে পারেন তাহলে সে ব্যবস্থা নিন অথবা শুরুতে যারা তৈরী করে তাদের কাছ থেকে নিয়ে আসুন। বাজার বুঝে উৎপাদনে যাবেন। পণ্যগুলো যাতে পরিস্কার ও রুচিশীল হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন।


৩) পণ্যগুলোর ভাল ছবি তুলুন বিভিন্ন এঙ্গেল থেকে বিশেষ করে যে এলাকার পণ্য সে এলাকার কিছু ছবিও জুড়ে দিন সাথে। ছবির সাথে সাথে পণ্যটি বা পণ্যগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত লিখুন যা অনেকের অজানা তাও লিখুন এতে করে ক্রেতাদের আগ্রহ তৈরী হবে।


৪) এবার সেলারহাটে আপনি একটি শপ তৈরী করুন কিভাবে করবেন তা এখানে ক্লিক করলেই পাবেন। শপটি তৈরী করার পর আপনার পণ্যগুলোর ছবি দিন, আপনার বিস্তারিত ঠিকানা ও মোবাইল যোগ করুন। আপনার নিজের ছবিও প্রোফাইলে সংযুক্ত করতে পারেন অথবা আপনার দোকান বা অফিসের ছবি।


৫) সেলারহাট আপনাকে ক্রেতার সাথে যোগাযোগ করতে সহযোগিতা করবে, ক্রেতা আপনার সাথে যোগাযোগ করবে অথবা মেসেজ দিবে। আপনার পণ্যগুলো যাতে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ে সে বিষয়ে কাজ করবে সেলারহাট। আপনার কাজ হলো সঠিক পণ্য দেয়া, ক্রেতার সাথে যোগাযোগ রক্ষা করা, ভালভাবে পণ্য ডেলিভারী করা এবং পণ্যের টাকা বুঝে নেয়া। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানার জন্য সেলারহাট ওয়েবসাইটের লেখাগুলো পড়ে নিন। কোন বিষয় জটিলতা মনে হলে সেলারহাট মার্কেটিং অফিসারদের সাথে কথা বলবেন।


৬) শুরুতে আপনাকে সেলারহাট ফ্রি মার্কেটিং সুযোগ প্রদান করছে যেটিকে কাজে লাগিয়ে আপনার ব্যবসারম্ভ করতে পারেন সহজেই।

আজই শুরু করুন নিজ এলাকা থেকে আত্নকর্মসংস্থানের বিপ্লব, ইনসাআল্লাহ আমরা সফল হবো।

leave your comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Top